ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাক - WordPress Website Backu

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ নিতে হয় এবং কেনবা আমরা আমাদের ওয়েবসাইটের ব্যাকআপ নিব ইত্যাদি বিষয় উপর আর্টিকেল নিয়ে হাজির হইলাম। ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট হোক বা অন্য কোন কাস্টম ওয়েবসাইট প্রত্যেকের প্রয়োজন নিয়মিত ওয়েবসাইট ব্যাকআপ রাখা।

ওয়েবসাইট ব্যাকআপ কি?

ওয়েবসাইট ব্যাকআপ বলতে একটি ওয়েবসাইটের কনটেন্ট, কোড, ডাটাবেস ইত্যাদির এক কপি করা রাখা। সহজ ভাষা বলতে গেলে আপনার ওয়েবসাইটের ফুল একটা কপি আপনার কাছে রাখা এটি আপনার সাইটের কোন ক্ষতি হলে তার পূর্ণ উধার করতে সক্ষম হবেন।

কেন ওয়েবসাইট ব্যাকআপ প্রয়োজন?

আমরা যারা ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করি তারা অনেক সময় কোন একটি কাজ করতে গিয়ে দেখি পুরো ওয়েবসাইট বা ওয়েবসাইটের এমন অংশ নষ্ট করে ফেলি বা ডিলিট করে ফেলি যা আমরা করতে চাই নি। এমন অবস্থায় আপনার ওয়েবসাইটের আগের কনটেন্ট বা ঐ অংশ টুকু ফিরিয়ে আনতে পারছেন না তাহলে এটি ক্ষতি হয়ে গেলো না?।

কিন্তু আপনি যদি ওয়েবসাইটের ব্যাকআপ নিয়ে রাখতেন ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করার আগে তাহলে আপনার ওয়েবসাইট ঐ দিন যে অবস্থায় ব্যাকআপ করিছেলন তা রিস্টোর করতে পারতেন। শুধু তাই যদি কোন আপনার ওয়েবসাইট হ্যাক হয় এবং আপনার ওয়েবসাইটের কনটেন্ট ডিলিটও করে ফেলে হ্যাকার তবুও আপনি আপনার ওয়েবসাইটের ব্যাকআপ থাকার কারণে সব রিকভার পর ব্যাকআপ টা রিস্টোর করে দিলেই আগের সাইট টা পেয়ে যাবেন।

এছাড়াও ওয়েবসাইট স্পিড অপমাইজেশন করতে গিয়ে অনেক সময় সাইটের ক্ষতি হয়ে যায় এই ক্ষতি আটকাতে আমরা তার আগে যদি ওয়েবসাইটের একটা ব্যাকআপ নিয়ে রাখি তাহলে সহজেই আগের সাইট পূর্ণ উদ্ধার করতে পারবো। আপনি যদি একজন ব্লগার হয়ে থাকেন আপনার যদি ব্লগ বা ইকমার্স রিলেটেড ওয়েবসাইট হয়ে থাকে তাহলে ব্যাকআপ নেওয়া আপনার জন্য ফরজ।

যে কয় ভাবে ওয়েবসাইট ব্যাকআপ নেওয়ার যায়

ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট সাধারণত দুই ভাবে ব্যাকআপ ও রিস্টোর করতে পারেন। যথাঃ-

  1. ম্যানুয়ালি ওয়েবসাইট ব্যাকআপ
  2. প্ল্যাগিন দিয়ে ওয়েবসাইট ব্যাকআপ

১। ম্যানুয়াল ওয়েবসাইট ব্যাকআপঃ এই পদ্ধতি ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ করার সাথে সাথেও অন্য সব কাস্টম ভাবে তৈরী করা ওয়েবসাইট ও ব্যাকআপ নেওয়া যায়। কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ম্যানুয়াল ব্যাকআপ নেওয়া যায় সেটি নিয়ে পরবর্তী কখনো লেখা হবে এই পদ্ধতি একটু জঠিল হওয়া অনেকেই পারে নাহ প্রথমবার তাই ২ প্রদ্ধতি অনুসরণ করবেন। ম্যানুয়াল ভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ নিতে হলে প্রথমে সিপ্যানেল ফাইল ম্যানেজার থেকে public_html ফোল্ডার যত ফাইল ও ফোল্ডার আছে সব জিপ করে ডাউনলোড করতে হবে।

এরপর phpmyadmin থেকে ডাটাবেস এক্সপোর্ট করে রাখতে হবে। যখন সাইট আগের অবস্থায় নিয়ে আসার প্রয়োজন পড়বে তখন আগের ফাইল গুলো ফাইল ম্যানেজার থেকে রিমুভ করে নতুন করে ডাটাবেস ও ইউজার তৈরী করে আগের ব্যাকআপ ফাইল টি আপলোড করে wp-config.php ফাইল ডাটাবেস কানেক্ট করলে সাইট রান হয়ে যাবে। বিষয় টা জঠিল লাগছে নাহ? তাই এটি নিয়ে পরবর্তী স্ক্রিনশট সহ আলোচনা করা হবে।

২। প্ল্যাগিন দিয়ে ওয়েবসাইট ব্যাকআপঃ আমরা ১ম পদ্ধতি পড়ে বুঝি গিয়েছি যে ম্যানুয়াল ভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ দেওয়া কতটা জঠিল আসলে ততোটাও জঠিল না কিন্তু যারা নতুন তাদের জন্য জঠিল মানতে হবে। এই কারণে আমি আপনাদের দেখাবো কিভাবে আমরা ওয়ার্ডপ্রেস সাইট সহজেই প্ল্যাগিন দিয়ে ব্যাকআপ বা রিস্টোর করতে পারি।

কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ নিবেন?

১। প্রথমে ওয়ার্ড্রপেস একটি প্লাগিন ইন্সটল করতে হবে যার নাম All-in-One WP Migration এই প্লাগিন দিয়ে আমরা ব্যাকআপ নিবো। এই প্লাগিন টি তে ফ্রি ভার্সনে ৫০০ এমবি পর্যন্ত ব্যাকআপ নেওয়া যায় এর উপরে সাইজের সাইটে ব্যাকআপ নেওয়া যাবে না এর জন্য আপনাকে পেইড ভার্সন কিনতে হবে। এই প্লাগিন টির অসুবিধা একটি এটি কিন্তু চিন্তা নেই আমি এই প্লাগিন টির প্রো মডিফাই ভার্সন দিয়ে দিচ্ছি যা এই ফেসবুক পেজে পাবেন ডাউনলোড করে এটি আপলোড করে Active করতে নিতে পারেন। আর যদি সাইট ৫০০ এমবির নিচে হয় তাহলে অরজিনাল টা ইউজ করতে পারেন।

আমি আপনাদের ফ্রি ভার্সন টি দিয়ে দেখাচ্ছি, এর জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ড্যাশবোর্ড মেনু থেকে Plugin > Add New গিয়ে প্লাগিন টি সার্চ করে ইন্সটল ও এক্টিভ করুন।

website backup1

২। প্লাগিন সেটআপ করা শেষ হলে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস ওয়েবসাইট ব্যাকআপ নেওয়ার জন্য ড্যাশবোর্ড মেনুবারে দেখুন নতুন অপশন যুক্ত হয়েছে All-in-One WP Migration নামে সেটিতে Hover করে Export এ যান।

website backup2

৩। এর পর আপনাকে অনেক গুলো অপশন দেখাবে আপনি এখান থেকে ফাইল সিলেক্ট করবেন তাহলে এটি একটি ফাইল হবে যেটি আপনি ডাউনলোড করা আপনার লোকাল কম্পিউটারে রাখতে পারবেন। এইখানে প্রো ভার্সন টি শুধু ফাইল এই রাখতে অপশন টি দেয় আপনি যদি পেইড টা কিনেন তাহলে স্ক্রিনশটের যে সব ক্লাউড স্টোরেজ সার্ভিস দেখতে পাচ্ছেন এখানে রাখতে পারবেন।

website backup3

৪। এখন কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন ব্যাকআপ ফাইল তৈরী হচ্ছে তৈরী হয়ে গেলে নিচের মতো ডাউলোড করার অপশন দিবে আপনি আপনার কম্পিউটারে ব্যাকআপ ফাইল টি রাখতে পারেন সেই সাথে ওয়েবসাইটে এভাবেও রাখতে পারেন কিন্তু ডাউনলোড করে রাখায় ভালো।

website backup4

৫। Dashboard এ All-in-One WP Migration>Backup এ গেল আপনি কত গুলো ব্যাকআপ নিয়েছেন সেইগুলোর লিস্ট দেখতে পারবেন আপনার হোস্টিং স্টোরেজ যদি বেশি থাকে তাহলে ডাউনলোড করার পর এই গুলো রাখতে পারেন আর যদি লিমিটেড এক দুই জিবি হোস্টিং হয়ে থাকে তাহলে ব্যাকআপ নেওয়া শেষে এইখান থেকে ডিলিট করে দিবেন এতে আপনার স্পেস গুলো বেঁচে যাবে।

website backup5

ওয়েব সাইট রিস্টোর করবেন কিভাবে? সহজ বিষয় All-in-One WP Migration>Import এ গিয়ে ব্যাকআপ ফাইল টি আপলোড করে দিন দিয়ে রিস্টোর করে ফেলুন।

ওয়েবসাইট ট্রান্সাফার পদ্ধতি

অনেক সময় অনেকের ওয়েবসাইট ট্রান্সফার করার প্রয়োজন পড়ে তখন কি করবেন আপনি যদি পুরাতন হোস্টিং থেকে নতুন হোস্টিং কোম্পানি তে যেতে চান তাহলে নিচের পদ্ধতি অনুসরণ করবেন।

  1. প্রথমে আপনার প্লাগিন দিয়ে অথবা ম্যানুয়াল ব্যাকআপ নিন। তারপর ফাইল টি ডাউনলোড করুন।
  2. এবার আপনার ডোমেইন টি কে নতুন হোস্টিং এর সাথে কানেক্ট করুন।
  3. এরপর আপনার সিপ্যানেল থেকে নতুন করে ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করুন।
  4. ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করা হয়ে গেলে ঐ খানে All in one wp migration প্লাগিন টি ইন্সটল করুন।
  5. শেষে ব্যাকআপ ফাইল টি Import করুন তারপর রিস্টোর করুন।

কাজ শেষ আপনি সফল ভাবে আপনার ওয়েবসাইট টি ট্রান্সফার করতে পেরেছেন বেশি হার্ড লাগলে ইউটিউবে সার্চ করে দেখতে পারেন। আপাতত এই পর্যন্ত পরবর্তীতে এই সব পদ্ধতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

নোটঃ আপনি ওয়ার্ডপ্রেস ব্যাক নেওয়ার সময় যে ইউজারনেম পাসওয়ার্ড ছিল তা দিয়ে লগিন করতে হবে যখন সাইট রিস্টোর করবেন।

আরো পড়ুনঃ

5 টি ওয়ার্ডপ্রেস সিকিউরিটি প্লাগিন।

ফ্রি হোস্টিং ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

আপনার কি কোন প্রশ্ন আছে?

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে