প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

আমাদের প্রত্যেক কম্পিউটার ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে যেসব প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ইন্সটল আবশ্যক সেই সব নিয়ে আজকের এই পোস্ট। যারা কম্পিউটার ব্যবহারে নতুন বা উইন্ডোজ সেটআপ দেওয়ার পর প্রয়োজনীয় কি কি সফটওয়্যার ইন্সটল করা প্রয়োজন তা জানেন না , আশা করি তাদের উপকারে আসবে এই লেখা টি।

কম্পিউটারের প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

আমাদের দৈন্দদিন জীবনে কম্পিউটার ব্যবহারে যেসব সফটওয়্যার প্রয়োজন পড়ে থাকে সেইসব সফটওয়্যার গুলো নিয়েই বলা হয়েছে। এছাড়াও যারা কম্পিউটার নতুন করে উইন্ডোজ দেওয়ার পর কি কি সফটওয়্যার ইন্সটল করতে হয় সেই নিয়ে জানতে পারেবেন।

১। ড্রাইভার সফটওয়্যার

ডেস্কটপ কম্পিউটার বা ল্যাপ্টপ কম্পিউটার যেটায় হোক না কেন প্রত্যেক কম্পিউটারে ড্রাইভার সফটওয়্যার ইনস্টল থাকা আবশ্যক। ড্রাইভার সফটওয়্যার ইন্সটল না করলে বিভিন্ন ফিচার কাজ করে নাহ ঠিক ভাবে যেমন অডিও, ব্লুথুত ওয়াফাই ইত্যাদি জিনিস কাজ করে নাহ কিন্তু যদি উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম হয়ে থাকে তাহলে আগে থেকেই প্রয়োজনীয় ড্রাইভার ইনস্টল থাকে।

যতই উইন্ডোজ ১০ এ আগে থেকে ড্রাইভার থাকুক তবুও অনেক সময় উইন্ডোজ নতুন করে সেটআপ করার পর কিছু সমস্যা থাকে অনেকের তাই উইন্ডোজ দেওয়ার পর ড্রাইভার সফটওয়্যার গুলো ইন্সটল করুন। আবার যদি আপনি ইন্সটল করে থাকেন সেই গুলো আপডেট রাখার চেষ্টা করবেন এতো কম্পিউটার ভালো কাজ করবে।

২। মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন

মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন এর সাথে আমরা সবাই পরিচত এর সফটওয়্যার দ্বারা আমরা অফিস সহ নিজের পার্সোনাল কাজও করে থাকি। মাইক্রোসফট অফিসের অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে বেশি ব্যবহৃত সফটওয়্যার গুলো হলো মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট, অ্যাক্সেস। এই গুলো দিয়ে যথা করে লেখালেখি, হিসাব-নিকাশ, প্রেজেন্টেশন তৈরী ও ডাটাবেস তৈরী করার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে।

মাইক্রোসফট অফিস অ্যাপ্লিকেশন দ্বার শিক্ষার্থীরা তাদের স্কুল কলেজ বা ভার্সিটির বিভিন্ন কাজ কর্ম সম্পাদন করে থাকে। এক কথায় এটি আমাদের কম্পিউটারে একটি অন্যতম প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার যা আমাদের দৈন্দদিন জীবনে কাজে লাগবেই আশা করা যায়।

৩। মাল্টি মিডিয়া প্লেয়ার সফটওয়্যার

যে সফটওয়্যার ব্যবহার করে আমরা কম্পিউটারে ভিডিও/অডিও দেখতে পায় সেই সফটওয়্যার গুলো কে ভিডিও/অডিও প্লেয়ার সফটওয়্যার বা মাল্টি মিডিয়া প্লেয়ার সফটয়্যার বলা হয়ে থাকে। আমরা জানি উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমে ডিফল্ট ভাবে ভিডিও প্লেয়ার থাকে যেটা ততো টা ফিচার বা সুবিধা দিতে পারে না তাই আমরা থার্ড পার্টি মাল্টি মিডিয় প্লেয়ার ব্যবহার করা থাকি।

কম্পিউটারে প্রয়জোনীয় সফটওয়্যার গুলো মধ্যে অডিও প্লেয়ার বা ভিডিও প্লেয়ার থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারন এর মাধ্যেমে আমরা ভিডিও গান, অডিও গান, টিউটোরিয়াল ইত্যাদি করে থাকি। এর জন্য তো একটি ভালো ভিডিও প্লেয়ার দরকার তাই না? মার্কেটপ্লেসে অনেক ভিডিও প্লেয়ার রয়েছে তার মধ্যে কিছু পেইড আবার কিছু ফ্রি। ফ্রি মাল্টি মিডিয়া প্লেয়ার হিসাবে জনপ্রিয় সফটওয়্যার হলো VLC media player । এছাড়াও রয়েছে Pot Player, KM Player ইত্যাদি।

VLC Player

৪। WinRAR সফটওয়্যার

WinRAR সফটওয়্যার টি ব্যবহার করে কম্প্রেস ফাইল বা জিপ ফাইল তৈরী করতে পারি আবার এটি ব্যবহার করে যেকোন জিপ ফাইল আমরা আনজিপ/Extract করতে পারি। জিপ ফাইল গুলো আনজিপ করার প্রয়োজনীয়তা আমাদের পড়েই কারণ বিভিন্ন ফাইল যেই গুলো আমরা অনলাইন থেকে ডাউনলোড করি বা কোথায় থেকে নেই সেইগুলো প্রায় জিপ ফাইলে থাকে যেমনঃ গেমস, সফটওয়্যার ইত্যাদি।

কিন্তু WinRAR একটি পেইড প্রোগ্রাম এই সফটওয়্যার আপনাদের কিনে ব্যবহার করতে হবে কিংবা অন্যকোনভাবে ব্যবহার করতে হবে। যদি আপনি এটি ব্যবহার করতে না চান তাহলে এর বিপরীত সফটওয়্যার গুলো ব্যবহার করতে পারেন জিপ ফাইল এর কাজ করার জন্য। ফ্রি ফাইল কম্প্রেশন সফটওয়্যারঃ 7-zip, PeaZip ইত্যাদি।

WinRAR

৫। ব্রাউজার সফটওয়্যার

ইন্টারনেট ব্রাউজিং এর জন্য ভালো একটি সফটওয়্যার গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে এবং এটি কম্পিউটারের প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার। ইন্টারনেট ব্রাউজার সবার প্রয়োজন পড়ে যেই ফিল্ডের হোক না কেন অহ হ্যাঁ এটি কে আবার ওয়েব ব্রাউজার বা ইন্টারেন্ট ব্রাউজার বলা হয়ে থাকে। তো যায় হোক সব চেয়ে জনপ্রিয় ওয়েব ব্রাউজার হলো গুগল ক্রোম কিন্তু গুগল বেশি রিসোর্স ব্যবহার করে অথ্যাৎ র‍্যাম অন্যে ব্রাউজার তুলনায় বেশি ব্যবহার করে। কিন্তু তবুও অনেকেই এবং আমিও এই ক্রোম ব্রাউজারে অভ্যস্ত কারণ এটির ফিচার আর নিজের অভ্যাস পরিবর্তন করতে পারছি নাহ।

গুগল ক্রোম ব্রাউজারের জনপ্রিয়তার পর পরেই মজিলা ফায়ার ফক্সের নাম আসে এই ব্রাউজার টি সাধারণ ব্যবহার কাছে যেমন জনপ্রিয় ঠিক তেমনি ডেভেলপারদের কাছেও প্রিয় একটি ব্রাউজার। এছাড়াও Opera, Microsoft Edge সহ আরো অন্য ব্রাউজার তো আছেই। আপনি আপনার পছন্দের ব্রাউজার টি কম্পিউটারে রাখতে পারেন।

৬। ডাউনলোড ম্যানেজার সফটওয়্যার

কম্পিউটারে ব্রাউজারের মাধ্যমে ইন্টারনেট থেকে ফাইল ডাউনলোড দিলে সেটি দিয়ে তুলনামূলক বেশি সময় লাগে। কিন্তু একটি ডাউনলোড ম্যানেজার সফটওয়্যার ব্যবহার করে কোন ফাইল ডাউনলোড করলে সেটি ডাউনলোড স্পিড আগের তুলনায় ভালো পাওয়া সেই সাথে ডাউনলোড ম্যানেজার সফটওয়্যার গুলোর নানান রকম ফিচার থাকে যেমন ইউটিউব ভিডিও ডাউনলোড অথবা ফেসবুক ভিডিও ডাউনলোড ইত্যাদি সুবিধা থাকে।

ডাউনলোড ম্যানেজার হিসাবে নামকরা সফটওয়্যার হলো ইন্টারনেট ডাউনলোড ম্যানেজার কিন্তু এটি একটি পেইড সফটওয়্যার আপনাকে কিনে ব্যবহার করতে হবে অন্য পদ্ধতিতে ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু টেনশনের কিছু নেই কম্পিউটার জন্য একটি ফ্রি ডাউনলোড ম্যানেজারের সম্পর্কে পোস্ট আছে এটি দেখে আসেন অসাধারণ ডাউনলো ম্যানেজার।

৭। বাংলা লেখার কীবোর্ড – প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

কম্পিউটারে ব্যবহারে যারা নতুন তারা অনেকেই জানে কম্পিউটারে বাংলা কিভাবে লিখতে হয় তাদের ও আজ জানা হয়ে যাবে। কম্পিউটারে বাংলা ভালোভাবে লেখার জন্য ভালো একটি সফটওয়্যার প্রয়োজন পড়বে কিন্তু বাংলা লেখার জন্য কোন সফটওয়্যার আপনি ব্যবহার করবেন?

কম্পিউটার বাংলা লেখার জন্য বিজয় ও অভ্র নামে দুটি সফটওয়্যার যায়। বিজয় সফটওয়্যার টি ব্যবহার করতে হলে আপনাকে এই সফটওয়্যার টি কিনে ব্যবহার করতে হবে নতুন অবস্থায় এটি শিখা একটু কষ্টকর বলে আমি মনে করি। অপর দিকে অভ্র কীবোর্ড ফ্রি এবং ওপেন সোর্স একটি কীবোর্ড যা দিয়ে আপনি ইংরেজি লিখলে বাংলা হয়ে যাবে । অর্থ্যাৎ যাকে আমরা বাংলালিশ লেখা বলে থাকি মজার না Amar লিখে আমার হয়ে যাবে। আপনি যদি ইংরেজি লেখা টাইপ করতে পারেন আপনাকে নতুন করে লেআউট মুখস্ত করবে হবে না এটি বড় একটি সুবিধা।  বাংলা কিবোর্ড হিসাবে অভ্র ব্যবহার করার আমন্ত্রণ দিলাম।

Avro Keyboard Download

৮। ফটো ইডিটিং – প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার

ফটো ইডিটিং এর জন্য ব্যবহৃত জন্য সফটওয়্যার হলো এডোবি ফটোশপ। এটি সাধারাণ মানুষ থেকে শুরু করে প্রত্যেক স্তরের মানুষের ই প্রয়োজন পড়ে তাই বলা যায় এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার।  নিজের ছবি ইডিটিং আবার কোন কাজে কোন ছবির ইডিটিং করার জন্য এটি লাগেই তো ইন্সটল রাখা প্রয়োজন।

৯। ইন্টারনেট স্পিড মিটার

আপনার কম্পিউটারে যে ইন্টারনেট কানেকশন টি ব্যবহা করছেন সেটি সেকেন্ডে কত স্পিড দিচ্ছে সেইসব মনিটর কয়ার জন্য Net Speed Monitor সফটওয়্যার টি ব্যবহার করতে পারেন।

১০। ক্লিনার সফটওয়্যার

কম্পিউটারের অপ্রয়োজনীয় ফাইল ডিলিট করার জন্য এবং কম্পিউটার কে ফাস্ট রাখার জন্য এই সফটওয়্যার টি ব্যবহার করতে পারেন।  CCleaner

আরো পড়ুনঃ

সি ড্রাইভ ফুল ! কিভাবে সি ড্রাইভের স্পেস বাড়াবেন?

VirtualBox Bangla Tutorial | ভার্চুয়াল বক্স কি এবং কেন ব্যবহার করবেন?

ভার্চুয়াল বক্সে Zorin OS Install বা যেকোন লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম পদ্ধতি।

আপনার কি কোন প্রশ্ন আছে?

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে