ফ্রি হোস্টিং ব্যবহার সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা।

আপনি কি ফ্রি হোস্টিং সম্পর্কে আগ্রহী? আপনি কি ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর ম্যাধমে আপনার ওয়েবসাইট বানাতে চাচ্ছেন? তাহলে আজকের পোস্ট টি আপনার জন্য। আজকে আলোচনা করব Free Hosting নিয়ে এটি কাদের জন্য উপযুক্ত, কি কাজের জন্য উপযুক্ত, কেন এটি ব্যবহার করা উচিত নয় ইত্যাদি বিষয় নিয়ে। আপনি যদি ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর মাধ্যমে ওয়েবসাইট বানানোর চিন্তা ভাবনা করে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এটি গুরুত্বপূর্ণ পোস্ট অবশ্যই মনোযোগ সহকারে পড়বেন।

শুরুর আগে

Free Web Hosting নিয়ে আলোচনা শুরু করার আগে আমরা কিছু জানা বিষয় আবার জেনে নিবো কারণ এটি এমনও মানুষ দেখবে যারা হোস্টিং কি সেই ধারণা সঠিক ভাবে রাখেন না। তাই আমরা ওয়েব হোস্টিং কি? এটি জানার মাধ্যমে আমরা আলোচনা শুরু করব। আর একটি বিষয় এইখানে সব বিষয় গুলো আমি সহজে বুঝানোর চেষ্টা করব সেই রকম কোন টেকনিক্যাল ভাষা ব্যবহার করব না যাতে সবাই বুঝতে পারে কি বলছি।

ফ্রি হোস্টিং কি?( What is Free Hosting)

সহজ ভাষায় বললে, হোস্টিং হলো এমন একটি জায়গা বা টুলস যেখানে ওয়েবসাইট রাখা যায়। মূলত এটি একটি বিশেষ কম্পিউটার যেটা ২৪ ঘন্টা ইন্টারনেটের সাথে যুক্ত থাকে এবং এই বিশেষ কম্পিউটার কে সার্ভার বা ওয়েব সার্ভার বলা হয়ে থাকে। আর এই বিশেষ কম্পিউটারে আমাদের ওয়েবসাইট কে রাখার জন্য বাৎসরিক ভাবে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ প্রদান করতে হয়। হোস্টিং সম্পর্কে আরো গভীর ভাবে আলোচনা করলে পোস্ট টি আরো বড় হয়ে যাবে যারা জানেন তাদের জন্য এইটুকু পরবর্তীতে হোস্টিং বা ওয়েব হোস্টিং যেটাই বলে না কেন বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

তো যদি কেউ একটি ওয়েবসাইট তৈরী করতে চাই তাহলে সর্ব প্রথম তাকে একটি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি থেকে হোস্টিং কিনতে হবে। তারপর ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করে থাকলে তা সার্ভারে পাবলিশ করতে হবে অথবা না করা থাকলে করতে হবে। কিন্তু এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যারা ফ্রি তে হোস্টিং দিয়ে থাকে তাদের কে ফ্রি হোস্টিং ওয়েবসাইট বা কোম্পানি বলা হয়ে থাকে। এখন বিষয় হলো এখানে বিভিন্ন পর্যায়ের লোক আসে তাদের মধ্যে কেউ ওয়েব ডিজাইন বা ডেভেলপমেন্ট শিখবে দেখে হোস্টিং পড়ে, কেউ ব্লগিং করবে বলে, আবার কেউ নিজের করা প্রজেক্ট সার্ভারে লাইভ করবে বলে হোস্টিং খুঁজে থাকে।

কিন্তু শুরুর দিকে সবার পক্ষে সম্ভব না হোস্টিং কিনে ব্যবহার করা সম্ভব না। তাই তখন অধিকাংশ লোক Free Hosting কোম্পানির অনুসন্ধান করে নিজের কাজ চালানোর জন্য। কিন্তু আসলেই কি এটি ব্যবহার করার যোগ্য? এটি সুবিধা বা অসুবিধা কি? কাদের জন্য এটি উপযোগ এই সম্পর্কে বিস্তারিত জানবো।

হোস্টিং বিষয়বস্তু

সাধারণত ওয়েবসাইট বানানোর জন্য যে ওয়েবসাইট বিল্ডার বা কনটেন্ট ম্যানেজ ব্যবহার করা হয় তা হলো ওয়ার্ডপ্রেস। আর এই ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে মূলত ব্লগিং সাইট থেকে শুরু করে ইকমার্স, বিজনেস ওয়েবসাইট ও তৈরী করা যায়। ফ্রি হোস্টিং যারা ব্যবহার করতে চাই তাদের মধ্যে অনেকেই ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কাজ করে থাকে বা করতে চাই অথবা অন্য কোন কারণে তাই আমি Free Hosting এ ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার সম্পর্কেও কিছু বলবো। প্রথমে Free Hosting ব্যবহারের সুবিধা সম্পর্কে আলোচনা করা যাক তারপর এটির অসুবিধা গুলো ও কেন ব্যবহার করা উচিত নয় এবং কাদের ব্যহার করা উচিত তা সম্পর্কে ব্যবহার আলোচনা করব।

ফ্রি হোস্টিং সাইট ব্যবহারের সুবিধাঃ

ফ্রি হোস্টিং বলতে, বিনা মূল্যে হোস্টিং সেবা প্রদান। ফ্রি হোস্টিং সাইটের গুলোর মাধ্যমে আপনি ওয়েবসাইট কোন প্রকার অর্থ খরচ করার ছাড়ায় তৈরী করতে পারেন। আর এটিই তাদের প্রধান সুবিধা তাছাড়া অন্যান্য সুবিধা খুব কমই। Free Web Hosting কোম্পানি ভেদের তাদের ফিচার/সুবিধা আলাদা আলাদা হতে পারি সব গুলো মিলিয়ে নিচে তুলে ধরা  হলোঃ

  • ফ্রি তে সাইট হোস্ট করতে পারবেন।
  • ফ্রি তে সাবডোমেইন পাবেন।
  • সি প্যানেল।
  • আনলিমিটেড ডিস্ক স্পেস।
  • আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ।
  • আনলিমিটেড ওয়েবসাইট।
  • আনলিমিড ডাটবেস তৈরী।
  • ফ্রি soft aculous সটওয়্যার ইন্সটলার।
  • ওয়েব মেইল তৈরী।
  • ওয়েবসাইট বিল্ডার টুল ইত্যাদি।
  • ফাইন ম্যানেজার।

Free Hosting সাইট প্রোভাইডার সাধারণত কোম্পানি ভেদে উপরের সুবিধা গুলো দিয়ে থাকে কিন্তু এই সকল সুবিধা/ফিচারের মধ্যে কিছু অসুবিধাও রয়েছে যেটি নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

ফ্রি হোস্টিং সাইট ব্যবহারের অসুবিধাঃ

আপনি যে ওয়েবসাইট টি তৈরী করতে চাচ্ছেন সেটি ফ্রিতে তৈরী করতে পারলেও এই Free web hosting এ রয়েছে অসংখ্য অসুবিধা। যেগুলো নিয়ে একটি ওয়েবসাইট ম্যানেজ করতে গেলে কষ্টকর অবস্থার সৃষ্টি হবে। ফ্রি Web Hosting ব্যবহার করার আগে পয়েন্ট গুলো ভালো ভাবে পড়ুন।

সি প্যানেলঃ ওয়েবসাইট তৈরী বা ম্যানেজমেন্ট করার জন্য যে টুল টি বেশির ভাগ হোস্টিংয়ে ব্যবহার করা হয়ে থাকে সেটি হলো সি প্যানেল/ কন্ট্রোল প্যানেল।  এটি দ্বারা ওয়েবসাইট আপলোড, ডিলিট, ডাটাবেস তৈরী ইত্যাদি কাজ গুলো করা হয়ে থাকে। একটি পেইড হোস্টিং ওয়েব সাইট ম্যানেজ করার জন্য যেসকল টুলস প্রয়োজন সব দেওয়া থাকে কিন্তু ফ্রি হোস্টিং এমন কিছু টুলস যেগুলো আপনার প্রয়োজন লাগতে পারে সেগুলো আপনি এই Free Hosting গুলো তে পাবেন না।

সাইট স্পিডঃ ফ্রি ওয়েব হোস্টিং সার্ভার পেইড হোস্টিংয়ের তুলনায় অনেক ধীর গতির হয়ে থাকে। একটি ওয়েব সাইটের পেজ কত দ্রুত গতিতে লোড হচ্ছে তারপর অনেক কিছু নির্ভর করে থাকে যেমন সার্চ ইঞ্জিন র‍্যাকিং। যদি সাইটের স্পিড ধীর গতির হয় তাহলে ইউজাররা যখন সাইটে প্রবেশ করবে তখন পেজ লোড হতে অনেক সময় নিবে যার ফলে অনেকেই বিরক্ত হয়ে আপনার ওয়েবসাইট টি ক্লোজ করে দিয়ে অন্য একটি সাইট ওপেন করবে। ফ্রি হোস্ট ব্যবহার করে তৈরী ওয়েবসাইট গুলো সাধারণ স্লো হয়েই থাকে যেটার করার কিছু নেয়। যদি আপনার ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করেন তাহলে এটি প্রত্যাহার করায় উত্তম।

ফাইল ম্যানেজারঃ সি প্যানেল এর মধ্যে ওয়েবসাইটের ফাইল ম্যানেজার করার জন্য যে টুলটি দেওয়া হয়ে থাকে তাকে ফাইল ম্যানেজার বলা হয়ে থাকে যা প্রত্যেক হোস্টের অপরিহার্য উপাদন। কিন্তু  ফ্রি তে যে ফাইল ম্যানেজার দেওয়া হয় সেটি দিয়ে মোটামুটি কাজ করা গেলেও ততো টা ভালো নাহ।

অ্যাডস ঝামেলাঃ আপনাকে তারা ফ্রি তে হোস্ট প্রোভাইড করছে যার ফলে হোস্টিং সাইটে ভিজিট করলে আসে পাশে নিচে উপরে বিভিন্ন জায়গাতে বিরক্তিকর এডস সো করবে। যেহেতু ফ্রি তে হোস্ট টি ব্যবহার করছেন এই টুকু সহ্য করতে হবে।

সিকিউরিটিঃ ফ্রি হোস্ট সাইট গুলোর সিকিউরিটি খুব ভালো হয় না। বিভিন্ন ম্যালওয়্যার বা ভাইরাস অথবা অন্য কিছু দ্বারা সাইট হ্যাক হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

ভিজিটরঃ হোস্টিং কোম্পানি গুলো আনলিমিটেড ব্যান্ডউইথ বলে থাকলেও যখন আপনার ওয়েবসাইট কাজ করার ফলে মোটামুটি একটু ভিজিটর আসতে শুরু করবে তখন সাইট অনেক সময় ডাউন হয়ে যাবে। এছাড়াও হুট করেই ওয়েবসাইট ডাউন হয়ে যেতে পারে।

ফাইল আপলোড লিমিটঃ প্রত্যেক হোস্টিং সার্ভারে যেকোন ফাইল আপলোড সাইজ নির্দিষ্ট করা থাকে যা পরে পেইড হোস্টিংয়ে পরিবর্তন করা যায়। কিন্তু ফ্রি হোস্ট গুলো তে এই ফাইল সাইজ লিমিট চেঞ্জ করা যায় যার ফলে ফাইল ম্যানেজার দিয়ে ফাইল গুলো ম্যানুয়ালি আপলোড করা লাগে।

SSL সার্টিফিকেটঃ Free web hosting কোম্পানি গুলো কোন ধরনের SSL সার্টিফিকেট ফ্রি তে দেয় না। যার ফলে আজকালের মর্ডান ব্রাউজার গুলো দ্বারা এই ওয়েবসাইট গুলো ভিউ করতে গেলে ওয়ার্নিং দেয় যেটা অনেক বিরক্তির ইউজাদের কাছে। অনেকেই Not Secure লেখা দেখলে সেই ওয়েবসাইট টি তে প্রবেশ করতে চাই নাহ। SSL অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস কিন্তু দূর্ভাগ্যের বিষয় এটি ফ্রি হোস্টে দেয় নাহ।

এছাড়াও আরো নানান ধরনের সমস্যা অসুবিধা ফ্রি ওয়েব হোস্ট কোম্পানি গুলোতে রয়েছে যা কাজ করার সময় উপলপদ্ধি করতে পারবেন। তবুও কিছু ক্ষেত্রে আপনি এই হোস্ট গুলো ব্যবহার করে কাজ চালিয়ে নিতে পারেন।

ফ্রি হোস্টিং সাইট ব্যবহার করা কি উচিত?

আপনি যদি প্রফেশনাল ভাবে একটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগিং ওয়েবসাইট বা অন্য কোন সাইট তৈরী করে কাজ করতে চান তাহলে আমি বলবো আপনার জন্য ফ্রি হোস্টিং উপযুক্ত না। ধরলাম, আপনি ওয়ার্ডপ্রেসে একটি ব্লগিং সাইট তৈরী করে কাজ করতে চাচ্ছেন ফ্রি Hosting সাইট ব্যবহার করে। তাহলে আপনার জন্য এটি হবে অত্যান্ত ভুল সিদ্ধান্ত কারণ ফ্রি হোস্ট গুলোর কোন ভরসা নেয়। আপনি কষ্টকর কাজ করবেন ভিজিটর আনবেন আর এক সময় দেখা যাবে ফ্রি হোস্টিং সাইটের সাথে আপনার ওয়েবসাইটও উধাও।

আপনি সুন্দর করে একটি ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগ সাইট তৈরী করলেন এবং সেটি  গুগলে ইনডেক্স করলেন ও কিছু ভিজিটর আসা শুরু করল। এমন সময় দেখবেন আপনার ওয়েবসাইট নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিতে শুরু করবে মাঝে মাঝে ওয়েবসাইট ডাউন হয়ে যাবে। আবার অনেক সময় দেখা গেছে হোস্টিং কোম্পানি টাই উধাও হয়ে যার ফলে তখন আপনার কষ্ট গুলো জলে পড়ে যাবে। এছাড়াও আপনার ওয়েব সাইটের কনটেন্ট গুলোর অ্যাক্সেস কিন্তু ঐ হোস্টিং কোম্পানির মালিক নিতে পারছে সেহেতু কনটেন্ট বা ওয়েবসাইট চুরি হওয়ার আশংঙ্কা থেকে যায়।

এছাড়াও তো উপরের সমস্যা গুলো আলোচনা করেছি যার জন্য প্রফেশনাল কাজে ফ্রি ওয়েব হোস্টিং একদম ব্যবহার করা উচিত না। আর ব্যবহার করলেও ফ্রি হোস্টিংয়ের কাজ করে ততোটা সুবিধা করতে পারবেন না সাফল্যতা অর্জন করা যাবে না বললেই চলে। তাই যদি সুন্দর ভাবে কাজ করার ইচ্ছা থাকে তাহলে ফ্রি চিন্তা বাদ দিয়ে একটি ভালো হোস্টিং প্রোভাইডার থেকে হোস্টিং কিনে কাজ শুরু করে দিন।

ফ্রি হোস্টিং কাদের জন্য উপযোগী?

যারা ওয়েবসাইট ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট বা ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে চান তাদের জন্য ফ্রি হোস্টিং একদম উপযোগী যদি না পেইড হোস্ট কেনার টাকা না থাকে। আপনার কাছে যদি হোস্টিং কেনার মতো টাকা পয়সা না থাকে তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস শিখার জন্য Free Hosting সাইট গুলো ব্যবহার করতে পারেন। আপনি যেহেতু শিখছেন তাই এই মূহুর্তে শিখার জন্য কোন প্রকার টাকা খরচ করে এটি ব্যবহার করে শিখা বেশি ভালো হবে। যারা ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করতে চান তাদের জন্য শুধু ফ্রি হোস্টিং সাইট বেশি ভালো হবে এবং যারা ছোট খাটো পিএইচপি প্রজেক্ট গুলো অথবা স্ট্যাটিক সাইট গুলো হোস্ট করতে চান।

আর যারা ওয়ার্ডপ্রেস নিয়ে কাজ করছেন  তারা প্রাক্টিস করার জন্য এই ফ্রি হোস্ট গুলো ব্যবহার করতে পারেন এবং এটি ব্যবহার করে বিভিন্ন ডেমো সাইট তৈরী করে পোর্টফলিও তে এড করতে পারেন। যেহেতু অনেক ফ্রি হোস্ট সাব ডোমেইন দিয়ে থাকে সেহেতু ডেমো সাইট বানানোর জন্য হোস্ট কেনার প্রয়োজন নাই আর যদি আপনার সামর্থ্য থাকে তাহলে পেইড হোস্ট কিনে নিতে পারেন। কিন্তু যাদের খরচ করার মতো শুরুতে অর্থ থাকে না তারা লাইভ ওয়ার্ডপ্রেস প্রজেক্ট গুলো ফ্রি হোস্টে রাখতে পারেন।

ফ্রি হোস্টিং সাইট লিস্টঃ

নিচে কিছু Free Hosting Website এর লিস্ট দেওয়া হলো এই গুলোর মধ্যে থেকে আপনার পছন্দের একটি হোস্ট বেছে নিয়ে কাজ করতে পারেন। ফ্রি হোস্ট হিসাবে প্রথম সাইট টা আমার কাছে ভালো লাগে।

  1. https://infinityfree.net/
  2. https://byet.host/
  3. https://www.freehosting.com/
  4. https://www.000webhost.com/
  5. https://profreehost.com/

আশা করি, ফ্রি হোস্টিং সম্পর্কে মোটামুটি একটা ধারণা দিতে পেরেছি। পোস্ট টি ভালো লাগলে আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না ধন্যবাদ।

আরো পড়ুনঃ  ওয়ার্ডপ্রেস থাকতে কেন কোডিং শিখবো?

Featured Image: Photo by Stephen Phillips – Hostreviews.co.uk on Unsplash

বিভিন্ন ধরনে টিপস এন্ড ট্রিক সহ প্রযুক্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের উদ্দেশ্য তৈরী প্রযুক্তি বিদ্যা। টেকনোলজি সম্পর্কিত আর্টিকেল পেতে প্রতিদিন ভিজিট করুন আমাদের ওয়েবসাইট।

Leave a Comment