গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে

অচেনা রাস্তায় হারিয়ে গিয়ে কিংবা জ্যাম চেক করার জন্য ব্যবহার করি গুগল ম্যাপ। কিন্তু, এই গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে? কিছুদিন আগেও ম্যাপ বলতে বুঝা যেত, এক টুকরা কাগজে কিছু নকশা আর ছোট ছোট কিছু লেখা।

যা দেখে কোন স্থানের অবস্থান বুঝা যেত বা সে স্থানে যাওয়ার পথ খুজেঁ পাওয়া যেত। আবার দিক নির্দেশ করার জন্য অনেক সময় চাঁদ তারার অবস্থানের উপর নির্ভর করতে হতো। কিন্তু এখন আর সেসবের উপর নির্ভর করতে হয়না।

এখন গুগল ম্যাপ অনেক কিছু সহজ করে দিয়েছে। যার কারণে কোথাও যাওয়ার জন্য এখন আর কাগজের ম্যাপের উপর নির্ভর করার দরকার হয় না। সারা বিশ্বকে এখন একস্থানে দেখতে পাওয়া যায় এই গুগল ম্যাপের মাধ্যমে। চলুন জেনে নিই গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে।

গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে?

গুগল ম্যাপ কাজ করে ডাটা কালেকশনের মাধ্যমে। গুগল ম্যাপ কাজ করার সবচেয়ে সাধারণ মূলনীতি হচ্ছে এটি সম্পূর্ণ ডাটা সংগ্রহ করে থাকে এবং তারপর প্রক্রিয়াকরণের মাধ্যমে সেটি বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করে থাকে।

এই ডাটা সংগ্রহ করার পদ্ধতিটি এবং সবচেয়ে সঠিক ও নির্ভরযোগ্য অবস্থানের তথ্য জানানোর বিষয়টি গুগল একা করেনা। সরকারি বিভিন্ন এজেন্সি বা বিভিন্ন ব্যবহারকারি থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থান থেকে গুগল প্রচুর পরিমানে তথ্য সংগ্রহ করে থাকে তার সিস্টেম আপডেট করার জন্য।

গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে, এটা সহজেউ বুঝতে পারবেন তাদের ডাটা সংগ্রহের প্রকারভেদ জানলে। নিচে তাদের ডাটা সংগ্রহের বিভিন্ন উপায়গুলো দেয়া হলো।

1. Base Map Partner Program

গুগল ম্যাপ অন্যান্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে যোগাযোগ করে তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন ডাটা সংগ্রহ করে থাকে যেমন জনপ্রিয় স্থান, নতুন রাস্তা, বায়বীয় কোন স্থান, পরিবহন রাস্তা এবং সময়, ভাড়া ইত্যাদি। গুগলের সাহায্যকারী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে সারা বিশ্বের হাজার হাজার সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান

2. Satellites

গুগল ম্যাপ সাধারনত বিভিন্ন ছবি তোলার জন্য স্যাটেলাইট ব্যবহার করে থাকে। স্যাটেলাইটে তোলা এই সব ছবি অন্যান্ন তথ্য যাচাইয়ের কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। যাচাই করে দেখা হয় যে অন্য উৎস থেকে পাওয়া তথ্য সঠিক কিনা বা সেখানে নতুন কোন বিষয় আপডেট হলো কিনা।

স্যাটেলাইট সাধারনত রাস্তার ছবি, ভবনের ঠিকানা, স্থান ইত্যাদি ধারন করে থাকে। এছাড়াও যেকোন একটি ভবনের উপর থেকে নিচ পর্যন্তও দেখা যায় স্যাটেলাইট ভিউ দ্বারা। স্যাটেলাইট কিভাবে কাজ করে?

3. Crowdsourcing

গুগল ম্যাপে ক্রাউডসোর্সিং খুব গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ করে উন্নয়নশীল দেশ বা সেইসব দেশের জন্য যেখানে বিভিন্ন বিষয়ে সরকারি নিষেধাজ্ঞা রয়েছে এবং গুগল ম্যাপ সরাসরি সেখান থেকে ডাটা সংগ্রহ করতে পারেনা।

গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে
গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে

শুরুতে গুগল ম্যাপে এমন সুবিধা ছিল যার সাহায্যে ব্যবহারকারীরা ম্যাপ এডিট করতে পারত কিন্তু কিছু ধ্বংসাত্নক কারণে এই সুবিধা এখন তুলে নেয়া হয়েছে। স্থানীয় গাইড সংস্থাগুলো বাড়তি সাহায্য করার জন্য এতে কিছু তথ্য সংযোজন করতে পারবে।

ক্রাউডসোর্সি মানে হলো, ধরুণ আপনি মগবাজারের জ্যামে আছেন এবং আপনার ফোনে ইন্টারনেট চালু করা আছে। এখন আমি কিন্তু চলমান না, স্থীর। একইভাবে আরও অনেকে মগবাজারের জ্যামে আটকা থাকতে পারে। তখন গুগল মগবাজারের রাস্তায় থাকা মানুষের ডাটা অ্যানালাইসিস করে জ্যাম দেখাবে। একইভাবে, গুগল গাইডের তথ্য নিয়ে ম্যাপে বিভিন্ন তথ্য দেখায়।

ব্যবসায়িক দিকগুলিও এই ম্যাপের সাহায্যে উন্নত করা যায়। কিন্তু অনাকাঙ্খিত প্রবেশ এড়াতে ব্যবসার জন্য গুগলের My Business Tool ব্যবহার করার জন্য উৎসাহিত করা হয়। এর সাহায্যে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রেজিস্টার করে তার সম্পূর্ণ তথ্য ঠিকমত আপডেট করা যায়।

যদি প্রশ্ন করেন, গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে? তাহলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ উত্তর এটিই হবে। যে তারা ক্রাউডসোর্সিংয়ের মাধ্যমে ডাটা সংগ্রহ করে।

4. Location Data From Users

আমরা যখন আমাদের মোবাইল ফোন ব্যবহার করে কোনো স্থানের অবস্থান জানতে চাই তখন আমরা গুগলকে সাহায্য করে থাকি যাতে সে আমার ডাটা পেতে পারে। গুগল আগে ট্রাফিক ক্যামেরা থেকে ডাটা সংগ্রহ করত ট্রাফিক সম্পর্কে জানার জন্য। কিন্তু এখন এরচেয়ে উন্নত পদ্ধতি বের হয়েছে।

এখন গুগল গতি ও অবস্থান বের করতে পারে সব ধরনের স্মার্ট ফোনে, যেসব ফোন গুগল ম্যাপ ব্যবহার করে থাকে। নতুন জানা ডাটাগুলো পুরনো ডাটার সাথে মিলিয়ে দেখা হয় সঠিক তথ্য যাচাই করার জন্য। এই জন্য আমরা রাস্তার ট্রাফিক সর্ম্পকে সঠিক তথ্য পেয়ে থাকি।

5. Data Processing

স্যাটেলাইট, স্ট্রিট ভিউ ভেহিকলস ও অন্যান্য ব্যবহারকারীদের সহায়তায় গুগল প্রচুর পরিমানে ডাটা সংগ্রহ করে থাকে যেটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে গুগলে অন্তর্ভূক্ত হয়ে থাকে এবং প্রয়োজনে গুগল ম্যাপ তাকে বর্ধিত করে থাকে। এখানে বিভিন্ন ছবি ও অন্তর্ভূক্ত থাকে।

এই ছবি খুবই গুরুত্বপূর্ণ ডাটা কালেকশনের জন্য। গুগলের মেশিন লার্নিং মডেল ব্যবহার করা হয় ম্যাপ তৈরি করার জন্য, বিল্ডিং এর আউটলাইন বুঝার জন্য, স্ট্রিট ভিউ ডাটা থেকে স্ট্রিট সাইন পড়ার জন্য ইত্যাদি। এই কাজগুলো গোপনীয়ভাবে করা হয় তবে এরা খুব সুন্দরভাবে ডাটা অর্গানাইজ করে থাকে।

আশা করি, গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে এই প্রশ্নের সহজ উত্তর পেয়ে গিয়েছেন। এবার চলুন এর বৈশিষ্ট্যগুলো জানা যাক।

গুগল ম্যাপের বৈশিষ্ট্য

গুগল ম্যাপের সাহায্যে যেমন কাছের কফি শপের ঠিকানা বা হাসপাতালের ঠিকানা জানা যায় তেমনি এর সাহায্যে সৌর জগত সম্পর্কে ও জানা যায়। নিচে গুগল ম্যাপ কি কি ধরনের কাজ করে থাকে তা সম্পর্কে দেয়া হলো।

1. Navigation

গুগল ম্যাপে কোন জায়গার রুট প্ল্যান দেখতে চাইলে এটি তা খুব সহজেই দেখিয়ে দেয় এবং কোন যানবাহন ব্যবহার করে কত সময়ে সেখানে পৌঁছানো যাবে সেটিও নির্দেশ করা থাকে। এছাড়া ভয়েস নেভিগেশনের সাহায্যে ভয়েস ডিরেকশন ও দেয়া যায়।

2. Real time traffic updates

ট্রাফিক জ্যামে আটকে থাকা খুবই বিরক্তিকর অভিজ্ঞতা। গুগল ম্যাপের সাহায্যে দেখা যায় যে কোন পথে ট্রাফিক বেশি। কোন পথ দিয়ে গেলে কত বেশি সময় লাগতে পারে এবং কোন পথ দিয়ে কম সময় লাগবে সেটির দিকনির্দেশনা ও দেয়া থাকে।

গুগল ম্যাপে রাস্তার জ্যাম দেখুন

3. Street View

যেকোন রাস্তার ছবি দেখা যায় গুগল স্ট্রিট ভিউ দিয়ে। এর সাহায্যে খুব কাছ থেকে যেভাবে সম্ভব ছবি তুলে গুগল তা ব্যবহারকারীর সামনে তুলে ধরে। গুগল ম্যাপ বিভিন্ন স্থানের ৩৬০ ডিগ্রী প্যানোরমিক ছবি তুলে থাকে।

4. Business Listings

গুগল ম্যাপ থেকে যেকোন কোম্পানির তথ্য নেয়া এখন খুবই সহজ একটি বিষয়। যেকোন স্থানের বিভিন্ন এডভারটাইজ আমরা ঘরে বসেই দেখতে পারি এবং সেই স্থান সম্পর্কে ধারনা নিতে পারি।

সবচেয়ে সুবিধা হচ্ছে যেকোন ধরনের রেস্টুরেন্ট, হাসপাতাল বা অন্য কোন প্রতিষ্ঠান বন্ধ বা খোলা থাকার সময় ও আমরা গুগল থেকে জানতে পারি। সেটা ভালো না খারাপ বা সেই প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন ছবি ও আমরা দেখতে পারি।

5. Globe View

গুগল ম্যাপে গ্লোব ভিউ ওপেন করলে সেখানে পৃথিবীকে গ্রহ হিসেবে দেখায়। সেখানে জুম ইন জুম আউট করে যেকোন স্থান দেখা যায়। এটা অবশ্য ম্যাপেও দেখা যায় কিন্তু ম্যাপে ২ডি ছবিতে এত সুন্দর করে ছবি দেখা যায়না যেটা গ্লোব ভিউতে দেখা যায়।

উপসংহার

আশা করি গুগল ম্যাপ কিভাবে কাজ করে? এই প্রশ্নে উত্তর পেয়ে গিয়েছেন। গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট দিয়েও ম্যাপ ব্যবহার করা যায়। এখন যদি গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট সম্পর্কে না জানেন। তাহলে, গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট কি? কিভাবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট সেটিং করবেন? লেখাটি পড়তে পারেন।

আপনার কি কোন প্রশ্ন আছে?

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে