উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স

উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্সঃ উইন্ডোজ ১০ একটি জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম, এটির ফিচার এবং ইউজার ইন্টারফেসের জন্য অনেকের পছন্দের একটি OS । আজকের পোস্টে থাকছে জনপ্রিয় অপারেটিং সিস্টেম windows 10 tips and tricks 2021 যা অনেকের অজানা। এই অপারেটিং সিস্টেম টি আমরা অনেকেই ব্যবহার করি কিন্তু এর মাঝে কয়েকটি কাজের টুলস বা সফটওয়্যার রয়েছে যার সম্পর্কে আমরা অনেকেই অবগত নেয় আজকে এই জিনিস গুলো নিয়ে আলোচনা করা হবে।

১০ টি উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স 2021

যারা উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম টি ব্যবহার করেন তাদের এই ১০ টি উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স অনেক কাজে আসবে বলে আশা করা যায়। উইন্ডোজ ১০ এর ফিচার বা সুবিধা গুলো এই পোস্ট থেকে জানতে পারবেন যেই গুলো আপনার অজানা থাকতেই পারে।

১। Clipboard History

আমরা অনেক সময় কম্পিউটারে একটী জিনিস কপি করে ভুলে আরেকটি জিনিস কপি করে বসে থাকি যার ফলে পূর্বের কপিকৃত জিনিস টি রিমুভ হয়ে যায়। কিন্তু আপনি জানেন কি উইন্ডোজ ১০ এর এমন একটি ফিচার আছে যেটা অন করলে আপনি এক সাথে অনেক কপি পেস্ট করতে পারবেন। অর্থ্যাৎ আপনি যদি ভুলে অন্যকিছু কপি করে ফেলেন তাও আপনি পূর্বের কপিকৃত টেক্সট বা ছবি পাবেন।

উইন্ডোজ ১০ এর এই ফিচার টি অন করার জন্য Setting থেকে System যেতে হবে এবং সেখানে Clipboard থেকে মার্ক করা অপশন টিপ অন করে দিন। তাহলে এরপর থেকে আপনি যেটাই কপি করেন নাহ সেটা স্টোর থাকবেন যখন পেস্ট করার প্রয়োজন হবে তখন windows logo কী চেপে ধরে V কী চাপলে যা যা কপি করছেন দেখতে পারবে এবং যেটা প্রয়োজন পেস্ট করতে পারবেন।

how to enable windows clipboard history

 ২। উইন্ডোজ ১০ ইমোজি ফিচার

লেখার মাঝে ইমোজি ব্যবহারের আমাদের লেখার মধ্যে এক প্রকার প্রাণ দান করে থাকে। যারা ফেসবুকে বা অন্য কোথায় লেখা, চ্যাটিং ইত্যাদি করে থাকেন তারা ফেসবুকের ইমোজি বা ঐ ওয়েবসাইটের যেসব ইমোজি আছে ঐ গুলো ব্যবহার করে থাকেন। কিন্তু আপনার আর কষ্ট করে ইমোজ বের করতে হবে উইন্ডজ ১০ ইমোজি দেওয়া রয়েছে ঠিক আমাদের মোবাইল কীবোর্ডের মতো। উইন্ডোজ ১০ এর ইমোজি ব্যবহার করার জন্য আপনাকে এক সাথে Windows Logo+.(dot) চাপতে হবে(টেক্সট বক্স এ কার্স থাকা অবস্থায়) তাহলে নিচের মতো উইন্ডো পাবেন এখানে থেকে আপনার পছন্দের ইমোজি টি ব্যবহার করতে পারেন।

windows 10 emoji

আশা করি, চ্যাটিং এর সময় এই উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক টি আপনার অনেক কাজে দিবে।

৩। Disk Cleanup

সি ড্রাইভে জমে থাকা প্রয়োজনীয় ফাইল গুলো সহজেই ডিলিট বা ক্লিন করতে পারেন কোন ধরনের সফটওয়্যার ছাড়াই। Windows 10 এ Disk Cleanup নামে একটি সফটওয়্যার রয়েছে যা দিয়ে আপনি এই অপ্রয়োজনী ফাইল গুলো ডিলিট করতে পারেবন। অপ্রয়োজনীয় ফাইল ক্লিন করার জন্য সার্চ থেকে Disk cleanup লিখতে গেলেই টুল টি পেয়ে যাবেন ওপেন করার সাথে সাথে আপনাকে ড্রাইভ সিলেক্ট করতে বলবে। মূলত সি ড্রাইভে সব অপ্রয়োজনীয় ফাইল জমা থাকে তাই এটি সিলেক্ট অবস্থায় থাকে এখন OK তে ক্লিক করুন।

disk cleanup

এরপর আপনি নিচের স্ক্রিনশটের মতো উইন্ডোজ দেখতে পারেবন এইখানে থেকে যে যে জিনিস ডিলিট করতে চান সেটি সিলেক্ট করুন। অবশ্যই সিলেক্ট করার সময় খেয়াল রাখুন এখানে Download ফোল্ডার টি ও সো করবে সেটি Uncheck করে OK তে ক্লিক করলে সব ডিলিট হয়ে যাবে। যদি আপনার ডাউনলোড ফোল্ডারের থাকা ফাইল প্রয়োজন না থাকে তাহলে সেটিও চেক করে ডিলিট দিতে পারেন।

৪। Temporary File Delete

কম্পিউটারে কাজ করার সময় যেসব ফাইল অটো ক্ষণস্থায়ী কাজে জন্য তৈরী হয়ে থাকে সেইসব ফাইল কে টেম্পোরারি ফাইল বলা হয়ে থাকে। এই ফাইল গুলো ডিলিট করার জন্য অনেকেই 3rd party সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকে অথবা কমান্ড ব্যবহার করে। কিন্তু আপনি উইন্ডোজ ১০ ইউজার হলে এটি সফটওয়্যার ছাড়াই এটি করতে পারবেন। এছাড়াও উইন্ডোজ ১০ আপডেট করার ফলে কিছু অপ্রয়োজনীয় ফাইল জমা হয়ে যায় যা সি ড্রাইভের স্পেস খেয়ে বসে থাকে তাও এটি দিয়ে ক্লিন করতে পারেবন।

এর জন্য Setting> System> Storage এ গেলে Temporary File অপশন পাবেন সেটি তে ক্লিক করলে নিচের স্ক্রিনশটের মতো উইন্ডো পাবেন যে গুলো ডিলিট করতে চান সিলেক্ট করে Remove Files এ ক্লিক করুন।

temporary files delete

উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স  এর এই পদ্ধতি সহজেই টেম্পোরারি ফাইল গুলো রিমুভ করে আপনার সি ড্রাইভ ক্লিন রাখতে পারবেন।

৫। Cortana Voice Assistant

অ্যান্ড্রয়েড ও অ্যাপলের মতো মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের মতো উইন্ডোজ ১০ ও রয়েছে Personal Voice Assistant । যার মাধ্যমে আপনি ভয়েসে কমান্ড দিয়ে অনেক কিছু করাতে পারেন কিন্তু একবারে হাই লেভেলের কিছু করানো যাবে না কিন্তু সাধারণ কাজ গুলো করাতে পারবেন। আপনি এর সাহায্য সফটওয়্যার ওপেন, ক্যালেন্ডার দেখা, সময় দেখা, যোগ-বিয়োগ করা, গান শুনা, তথ্য চাওয়া ইত্যাদি কাজ গুলো করতে পারেন। দারুণ নাহ এই উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক টি!  Cortana কে কমান্ড দেওয়ার জন্য মাইক্রোফোন লাগবে যদি আপনার ডেস্কটপে থেকে থাকে তাহলে হয়ে গেল কিন্তু যাদের নাই তারা ফিচার টি উপভোগ করতে পারেবন নাহ।

cortana

যাদের ল্যাপটপ কম্পিউটার রয়েছে তাদের বিল্ড ইন মাইক্রোফোন থাকে তারা সুবিধা টি নিতে পারেন। Cortana কে অন করার জন্য সার্চ থেকে Cortana লিখে অ্যাপ ওপেন করে সেটিং করে নিন তাহলে Cortana বললে আপনার ডাকে সারা দিবে।

৬। Snipping Tool

snipping tool
উইন্ডোজ ১০ স্ক্রিনশট নেওয়ার জন্য আমরা সাধারণত উইন্ডোজ লগো+Print Screen বাটনে চাপ দিয়ে স্ক্রিনশট তুলে থাকি। কিন্তু এটি দ্বারা ফুল স্ক্রিনশট নেওয়া যায় কিন্তু কোন নির্দিষ্ট অংশের স্ক্রিনশট নিতে এই টুল ব্যবহার করতে পারেন এটি উইন্ডোজ ৭ এ ও রয়েছে।

৭। Task Manager – উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স

Task Manager

টাস্ক ম্যানেজে সফটওয়্যার উইন্ডোজের একটি বিল্ড ইন অ্যাপ্লিকেশন বা টুল যেটি ব্যবহার করে উইন্ডোজ সব কাজের মনিটর করা যায় এবং ম্যানেজ করা যায়। আমরা কম বেশি অনেকেই টাস্ক ম্যানেজার এর কাজ জানি এইখানে আপনার কাছে একটি টিপস এন্ড ট্রিক্স শেয়ার করব। অনেক সময় দেখা যায় কম্পিউটারে বিভিন্ন সফটওয়্যার রানিং করার সময় Not Responding সমস্যা দেখা যায় সেটি অনেকক্ষণ স্ক্রিনে থাকে এটি রিমুভ করার জন্য Task Manager টি ব্যবহার করতে পারেন। যখন কোন সফটওয়্যার Not Responding হবে তখন টাস্ক ম্যানেজার ওপেন করে যে সফটওয়্যার টি হ্যাং করছে সেটি তে ক্লিক করে End Task এ ক্লিক করুন।

৮। On-Screen Keyboard

On-Screen Keyboard

এখন যে উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স টি শেয়ার করব সেটি শুধু উইন্ডোজ ১০ এ সীমাবদ্ধ না অন্য উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমও এটি রয়েছে। ধরুন হঠ্যাৎ করে আপনার কম্পিউটারের কীবোর্ডের কোন একটা কী কাজ করছে না কিন্তু এই সময় জিনিস টা টাইপ করার প্রয়োজন তখন কি করবেন? তখন আপনার কাজে আসবে On-Screen Keyboard টি এর নাম শুনেই হয়তো এর কাজ বুঝতে পেরেছেন।

উইন্ডোজ এর মেনু থেকে সার্চ করে এই কীবোর্ড আনা যাবে এবং এটি আপনার স্ক্রিনে ঠিক উপরের ছবির মতো দেখা যাবে এইখানে আপনি মাউস দিয়ে ক্লিক করে করে টাইপ করতে পারবেন। আপনার যেই বাটন/কী টি কাজ করছে সেটার কাজ এই কীবোর্ড এর মাধ্যমে সম্পন্ন করতে পারেন।

৯। মাল্টি টাস্কিং

এখন যে উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক দিতে যাচ্ছি সেটি আসলে একটি শর্টকাট। যারা মাল্টি টাস্কিং করে থাকেন এক সফটওয়্যার থেকে আরেক সফটওয়্যার যাওয়া আসা করা লাগে তারা এটি ব্যবহার করতে পারেন। আমরা সাধারণত মিনিমাইজ করে টাস্কবার থেকে এক সফটওয়্যার থেকে আরেক সফটওয়্যারে ট্রাভেল করি। কিন্তু উইন্ডোজ ১০ এ Alt বাটন চেপে ধরে ট্যাবে প্রেস করলে রিসেন্ট পাঁচটা উইন্ডো সো করবে যে গুলো তে যথাক্রমে টাব প্রেস করে সিলেক্ট করতে পারেন।

সেটিং থেকে Multi Tasking এ গিয়ে এর আরো সব অপশন পাবেন আপনি আপনার মতো করে সেটিং গুলো করে নিতে পারেন।

১০। Picasa Photo Viewer

যারা উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম টি ব্যবহার করেন তারা খেয়াল করে দেখবেন উইন্ডোজ ১০ এর যে ডিফল্ট ফটো ভিউয়ার আছে সেটি অনেক স্লো। কোন ফটো ওপেন করে দেখতে গেলে অনেকে টাইম লাগে। উইন্ডোজ ১০ এর ফটো ভিউয়ারের পরবির্তে আপনারা Picasa সফটওয়্যার টি ব্যবহার করতে পারেন এটি অনেক ফাস্ট এবং ফটো ভিউ টা সুন্দর ভাবে দেখা যায়। আর অবশ্যই এটি কে ডিফল্ট ফটো ভিউয়ার হিসাবে সেট করে দিবেন।

আশা করি, ১০ টি উইন্ডোজ ১০ টিপস এন্ড ট্রিক্স টি কম্পিউটার ব্যবহার করার সময় আপনার অনেক কাজে দিবে। এই ধরনের টিপস এন্ড ট্রিক্স পেতে আমাদের প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন। ধন্যবাদ

কম্পিউটার সম্পর্কে অন্যান্য পোস্টঃ

কিভাবে কম্পিউটারে সাউন্ড সমস্যার সমাধান করবেন।

VirtualBox Bangla Tutorial | ভার্চুয়াল বক্স কি এবং কেন ব্যবহার করবেন?

2 মন্তব্য

আপনার কি কোন প্রশ্ন আছে?

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে